বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ ১৫ আষাঢ় ১৪২৯

তামিমের বক্তব্যকে ‘মিথ্যাচার’ দাবি পাপনের
ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৭ জুন, ২০২২, ৪:১৮ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

তামিমের বক্তব্যকে ‘মিথ্যাচার’ দাবি পাপনের

তামিমের বক্তব্যকে ‘মিথ্যাচার’ দাবি পাপনের

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট থেকে আপাতত ছয় মাসের বিরতিতে আছেন বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল। এই বিরতির পর টি-টোয়েন্টিতে নিজের ভবিষ্যত নিয়ে বলতে গিয়ে তামিম অভিযোগ করেই বলেছিলেন, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে নাকি কথা বলারই সুযোগ পাচ্ছেন না তিনি।

তামিমের বক্তব্যের একদিন পরই বিসিবি সভাপতি নাজমুল হোসেন পাপন এবার বললেন পুরো উল্টো কথা। ক্রিকেট বিষয়ক ওয়েবসাইট ক্রিকবাজকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তামিমের ঐ বক্তব্যকে ‘মিথ্যাচার’ বলে দাবি করেছেন পাপন।

তিনি বলেন, ‘আমরা যে তামিমের সঙ্গে টি-টোয়েন্টিতে ওর ভবিষ্যৎ নিয়ে কথা বলিনি এটা স্রেফ মিথ্যা কথা। তাকে আমি আমার নিজের বাসায় ডেকে চারবার টি-টোয়েন্টি খেলতে অনুরোধ করেছি। বোর্ডের অন্য সদস্যরাও তাকে অনুরোধ করেছে, সে বলেছে খেলবে না। এখন দেখেন কী বলছে সে।’

তিনি আরও বলেন, ‘অনেকবার অনুরোধের পরও সে (তামিম) আমাদের লিখিত দিয়েছে যে এখন (টি-টোয়েন্টি) খেলতে চায় না। আমি বুঝতে পারছি না এখানে কনফিউশন আসলে কোথায়। আমি বলতে চাচ্ছি, ও কী বলতে চায় বলতে দিন। এরপর আমরা আমাদের হাতে থাকা প্রমাণ দেখাবো।’

তামিম টি-টোয়েন্টি খেলবে কিনা তা নিয়ে সংশয় থাকলেও বিসিবি সভাপতি অবশ্য তাকে টি-টোয়েন্টি দলে দেখার আশা প্রকাশ করে বলেন, ‘আমরা চাই সে (টি-টোয়েন্টি) খেলুক। এখন সে কি খেলবে? সে কি বিশ্বকাপে খেলতে চায়? যদি খেলতে চায়, তাহলে তাকে আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে হবে।’

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী
প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।
ফোন: +৮৮০২-৮৮৩২৬৮৪-৬, মোবাইল: ০১৪০৪-৪৯৯৭৭২। ই-মেইল : e-mail: swadeshnewsbd24@gmail.com, info@swadeshpratidin.com
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী
প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।