বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ ১৫ আষাঢ় ১৪২৯

পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পরও আসছে অত্যাধুনিক ৩ লঞ্চ
বরিশাল প্রতিনিধি
প্রকাশ: বুধবার, ২২ জুন, ২০২২, ৮:৪৫ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

দুদিন পরেই খুলে যাবে পদ্মা সেতুর দ্বার। দক্ষিণাঞ্চলের উন্নয়নের বিপ্লব ঘটাবে এই সেতু। ইতোমধ্যে বিশ্বব্যাপী আলোচিত আর দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের বহুল আকাঙ্ক্ষার সেতুটি নিয়ে আর্থসামাজিক প্রেক্ষাপটে লেগেছে পরিবর্তনের হাওয়া।

লঞ্চমালিকরা বলছেন, পদ্মা সেতু উদ্বোধনের প্রথম ছয় মাস যাত্রী সংকট দেখা দেবে। এরপর পর্যায়ক্রমে স্বাভাবিক হয়ে আসবে এই রুটের জনপ্রিয়তা। এর পেছনে গুরুত্বপূর্ণ যুক্তিও উত্থাপন করেছেন লঞ্চমালিকরা। তবে সব শঙ্কা কাটিয়ে আসন্ন ঈদুল আজহায় বরিশাল-ঢাকা নৌরুটে যুক্ত হচ্ছে আরও তিনিটি বিলাসবহুল নতুন লঞ্চ।

বিআইডব্লিউটিএ জানিয়েছে, দেশের মধ্যে সদরঘাটের পর সবচেয়ে ব্যস্ত ও জনবহুল নদীবন্দর বরিশাল। এখানে প্রতিবছর দুই ঈদে যাত্রীর চাপ সামলাতে হিমশিম খেতে হয়। তা ছাড়া বিলাসবহুল লঞ্চ সারা বছরই দক্ষিণাঞ্চলের মানুষকে আরামদায়কভাবে গন্তব্যে পৌঁছে দেয়। এর মধ্যে ঢাকার সঙ্গে যাত্রী পারাপার করে রোটেশনে ৭টি। আর ঈদের সময় ২৫টি। এ ছাড়া অভ্যন্তরীণ রুটে আরও ৩০টির মত লঞ্চ রয়েছে।

বরিশাল নদীবন্দর কর্মকর্তা ও বিআইডব্লিউটিএর যুগ্ম পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, পদ্মা সেতু চালুর পর লঞ্চ সেক্টরে যাত্রী-সংকটের কিছুটা প্রভাব পড়বে। তারপরও আসন্ন ঈদুল আজহায় দুটি কোম্পানির বিলাসবহুল তিনটি লঞ্চ রুটে যুক্ত হওয়ার কথা শুনেছি। যদিও লঞ্চ কোম্পানিগুলো অফিসিয়ালভাবে এখন পর্যন্ত অবহিত করেনি। 

তিনি আরও বলেন, পূর্বনির্ধারিত লঞ্চ ভাড়া এখনো রয়েছে। লঞ্চমালিকরা ভাড়া কমানোর কোনো সিদ্ধান্ত নেননি। তবে উদ্বোধনের কয়েক মাস পর্যবেক্ষণ করবেন বলে তারা আমাকে জানিয়েছেন। এরপরই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন।

নিজাম শিপিং লাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নিজাম উদ্দিন বলেন, পদ্মা সেতু উদ্বোধনে লঞ্চ সেক্টরে যাত্রী-সংকটের বিশেষ প্রভাব পড়বে বলে আমি মনে করি না। কারণ দক্ষিণাঞ্চলের সাধারণ মানুষ ২৫০ থেকে ৩০০ টাকায় একমাত্র লঞ্চেই যাতায়াত করতে পারে। বাসে তা সম্ভব নয়। আর লঞ্চ সাধারণ যাত্রীদের গুরুত্ব দিয়েই টিকিটের মূল্য নির্ধারণ করেছে। তবে হ্যাঁ, সেতু চালু হওয়ার পর কেবিনের যাত্রী-সংকট দেখা দিতে পারে। কারণ, ভিআইপিরা নিজেদের গাড়ি নিয়ে সরাসরি যাতায়াত করবেন। এ ছাড়া সড়কপথের তুলনায় নৌপথে পণ্য পরিবহনে খরচ কম বলেও জানান তিনি।

এম খান গ্রুপের চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমান খান বলেন, পদ্মা সেতু চালু হলে দক্ষিণাঞ্চলে প্রচুর পরিমাণে কলকারখানা ও শিল্পপ্রতিষ্ঠান গড়ে উঠবে, উন্নয়ন হবে। এতে এই অঞ্চলে মানুষ বেশি আসবে। সে কারণে লঞ্চে যাত্রী-সংকট ওই অর্থে সৃষ্টি হবে না। তবে প্রথম দুই থেকে ছয় মাস হয়তো সংকট দেখা দেবে। তারপর পর্যায়ক্রমে সংকট কেটে যাবে।

তিনি আরও বলেন, প্রথম অবস্থায় যাত্রী-সংকটের ঝুঁকি জেনেও এই ঈদে এম খান-৭ এবং এম খান-১১ নামের দুটি লঞ্চ নৌ-রুটে যুক্ত হয়ে যাত্রী পরিবহন শুরু করবে। এসব লঞ্চে থাকবে লিফট, চলন্ত সিঁড়ি, এটিএম বুথ, হেলিপ্যাড, সুইমিংপুল, নামাজের কক্ষ, ডাইনিং, শিশুদের খেলার জোন, রেস্টুরেন্ট, ব্রেস্টফিডিং রুম ও রোগীদের জন্য আইসিইউ সুবিধা। ফলে যাত্রীরা অবশ্যই আরামদায়ক ও নিরাপদে যেতে লঞ্চ রুটকে বেছে নেবেন।

বরিশাল চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি ও সুন্দরবন নেভিগেশনের মালিক সাইদুর রহমান রিন্টু জানান, সড়কপথের সঙ্গে নৌপথের কোনো তুলনা হয় না। নৌপথ হচ্ছে আরামদায়ক ও নিরাপদ। এ জন্য পদ্মা সেতু চালুর পর নৌ-রুটে চলাচলকারী লঞ্চগুলোতে কোনো যাত্রী-সংকট দেখা দেবে বলে মনে করি না। যে কারণে আসন্ন ঈদুল আজহায় সুরন্দরবন-১৬ লঞ্চটি যাত্রী পরিবহনে যুক্ত করব। লঞ্চটির নির্মাণ প্রায় শেষ। এখন রং করা চলছে।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী
প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।
ফোন: +৮৮০২-৮৮৩২৬৮৪-৬, মোবাইল: ০১৪০৪-৪৯৯৭৭২। ই-মেইল : e-mail: swadeshnewsbd24@gmail.com, info@swadeshpratidin.com
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী
প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।